নড়াইলে আ’লীগ নেতাকে ভোট না দেয়ায় শিক্ষককে হাতুড়িপেটা

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার শালনগর মডার্ন একাডেমীর ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতাকে ভোট না দেয়ায় শিক্ষক প্রতিনিধিকে হাতুড়ি ও রড দিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে।

তাকে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার শালনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

হামলার শিকার শেখ ফরহাদ হোসেন উপজেলার শালনগর ইউনিয়নের শালনগর মডার্ন একাডেমীর ক্রীড়া শিক্ষক।

এ ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি মোঃ. সালেক মুন্সীকে প্রধান আসামি করে গতকাল গতকাল শুক্রবার বিকালে লোহাগড়া থানায় ২৬ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন ওই শিক্ষকের স্ত্রী লতিকা পারভিন।

আহত শিক্ষক ফরহাদ অভিযোগ করে বলেন, বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি পদে সালেক মুন্সী আমার কাছে ভোট চেয়েছিলেন। কিন্তু আমি ভোট দিয়েছি রাজা মিয়াকে। রাজা মিয়া সভাপতি হয়েছেন। এরপর তিনি আমার ওপর ক্ষিপ্ত হন। তিনি আমাকে বলেছেন নির্বাচনে যত টাকা ব্যয় হয়েছে তা দিতে হবে।

এরপর থেকে প্রায় আমার বাসায় রাতে ইট ছুড়ে মারা হয়। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রড, হাতুড়ি ও লাঠি নিয়ে অনেক লোক আমার বাসার সামনে জড়ো হয়। বাসা থেকে বের হয়ে এ অবস্থা দেখে সরে যেতে চাইলে তারা আমাকে ধরে হাতুড়ি, রড ও লাঠি দিয়ে আমাকে বেধড়ক মারপিট করে।

অভিযুক্ত সালেক মুন্সী বলেন, আমি ঘটনার সময়ে শালনগরে ছিলাম না। কারা কেন তাকে মেরেছে তা আমি জানি না।

লোহাগড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত)আমানউল্লাহ আল বারী জানান, এ ঘটনায় ওই দিন রাতেই একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Comments

comments