ফরিদপুরে আ.লীগ নেতার দৌরাত্ব, ঘরছাড়া সাধারণ মানুষ

ফরিদপুর জেলার সালথা উপজেলার খারদিয়া গ্রামে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের এক নেতার দাপটে অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষ। তার অত্যাচার নির্যাতনের ভয়ে ঘরছাড়া বেশীরভাগ পুরুষ। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে ওই এলাকার সাধারণ নারী পুরুষ।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, যুদ্ধাপরাধী বাচ্চু রাজাকারের সৎ ভাই হাবিব ও যদুনন্দী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর এলাকার সাধারণ মানুষের উপর অত্যাচার নির্যাতন চালিয়ে আসছে। দলীয় প্রভাব ও প্রভাবশালী এক নেতার ছত্রছায়ায় থেকে পুলিশ ও প্রশাসনকে ব্যবহার করে গ্রেফতার ও জেল জরিমানা করছে সাধারণ মানুষকে।

তাদের অভিযোগ, আওয়ামীলীগের সম্পাদক আলমগীর বসতবাড়ির পাশে একটি ইটভাটা তৈরী করেছে, তখন স্থানীয়রা বাধা দিয়েছিল যে বাড়ির পাশে ইটভাটা নির্মান করা যাবে নাহ, তখন থেকেই বিবাদ শুরু। এর পরে গত উপজেলা নির্বাচনে যারা নৌকায় ভোট দিয়েছে তাদের উপরও বিভিন্ন অযুহাতে হামলা মামলা নির্যাতন চালাচ্ছে আলমগীর। কারন ওই নির্বাচনে আলমগীর স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচন করেছিলেন। এই কারনে সে নিজে বাচ্চু রাজাকারের ভাই হয়েও প্রতিপক্ষকে বাচ্চু রাজাকারের অনুসারী সাজিয়ে প্রশাসনকে ভুল বুঝিয়ে সাধারন আওয়ামীলীগ কর্মী ও জনসাধারণকে হয়রানী করে যাচ্ছে।

স্থানীয় ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষ ও আওয়ামীলীগের কর্মীরা ওই নেতার অত্যাচার থেকে বাঁচতে সংসদ উপনেতা সাজেদা চৌধুরীসহ দলীয় নেতাদের হস্তক্ষেপ কামানা করেছেন।

Comments

comments