জামায়াতে ইসলামীর নবনির্বাচিত আমীরকে ছাত্রশিবিরের অভিনন্দন

বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের শীর্ষ সংগঠন, বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ইসলামী ও তৃতীয় বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নবনির্বাচিত আমীর ডা. শফিকুর রহমানকে অভিনন্দন জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

বুধবার এক যৌথ অভিনন্দন বার্তায় বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. মোবারক হোসাইন ও সেক্রেটারি জেনারেল মো: সিরাজুল ইসলাম জননেতা ডা. শফিকুর রহমানকে শুভেচ্ছা ও প্রাণঢালা অভিনন্দন জানিয়েছেন।

অভিনন্দন বার্তায় শিবির নেতৃবৃন্দ বলেন, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী শুধু বাংলাদেশ নয় বরং বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে। শত প্রতিকূলতার মাঝেও সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের মাধ্যমে কোরআনের আলোকে কল্যাণমূলক রাষ্ট্র গঠনের লক্ষ্যে এই কাফেলার নিয়মতান্ত্রিক গঠনমূলক পথচলা, ইসলামের মর্যাদা, দেশ ও জনগণের অধিকার সমুন্নত রাখতে আপোষহীনতা, জাতিকে সৎ ও আদর্শিক নেতৃত্ব উপহার এবং জনকল্যাণে নিবেদিত, দেশ ও ইসলাম প্রিয় জনগণের প্রিয় রাজনৈতিক ঠিকানা জামায়াতে ইসলামী বিশ্বজুড়ে সমাদৃত হয়েছে। দেশ ও ইসলামের প্রশ্নে অবিচল থেকে সাবেক আমীরে জামায়াত শহীদ মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, সেক্রেটারি জেনারেল শহীদ আলী আহসান মোহাম্মদ মোজাহিদ, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল শহীদ আব্দুল কাদের মোল্লা, শহীদ কামারুজ্জামান, শহীদ মীর কাসেম আলী, কারারুদ্ধ আল্লামা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীসহ এ কাফেলার নেতৃবৃন্দের আত্বত্যাগ আজ বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের অনুপ্রেরণা। রাষ্ট্রীয় অবিচারের মাধ্যমে শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে হত্যা, নেতাকর্মীদের নির্বিচারে গুম, খুন, হত্যা, গ্রেফতার, নির্যাতন, নিপীড়নের পরও জামায়াতে ইসলামীর দৃঢ় পথ চলা দেশাবসীকে আশান্বিত করেছে। শত প্রতিকূলতার মাঝেও নিজেদের অভ্যন্তরে এ গণতন্ত্রের চর্চা অপরাজনীতির ধারকদের সামনে আবারো একটি উজ্জল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। দেশ ও ইসলাম প্রিয় জনগণ জামায়াতে ইসলামীর নেতৃত্বে দুর্নীতি, সন্ত্রাস অপশাসন মুক্ত সমৃদ্ধ সোনার বাংলা দেখার প্রহর গুনছে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দলের আমীর নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ডা. শফিকুর রহমান দেশের প্রত্যাশিত নেতৃত্ব গুনাবলি সম্পন্ন ও পরীক্ষিত ব্যক্তিত্ব। বর্তমান সরকার তাকে একাধিকবার গ্রেফতার করে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলে বন্দি করে রাখে। তিনি জনগণের ভোটাধিকার আদায়ের আন্দোলনসহ গণতান্ত্রিক আন্দোলনে বিভিন্ন সময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। অন্যদিকে তিনি চিকিৎসা সেবা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন, এতিমখানা, মসজিদ, দাতব্য চিকিৎসালয়, ক্লাব, সেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে জনগণের মাঝে থেকে মানুষের সেবা করেছেন।

তাছাড়া তিনি সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ইতালি, স্পেন, গ্রীস, বেলজিয়াম, তুরস্ক, মালয়েশিয়া, আরব আমিরাত, ফিলিপাইন, ব্রুনেই প্রভৃতি দেশ ভ্রমণ করেছেন। সুতরাং আমরা প্রত্যাশা করি তার নেতৃত্বে গণমানুষের প্রিয় রাজনৈতিক ঠিকানা জামায়াতে ইসলামী লক্ষ্যপানে এগিয়ে যাবে। জনগণের প্রত্যাশা পূরণে পথচলা আরো বেগবান হবে। বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির জামায়াতে ইসলামীর প্রত্যাশিত পথ চলায় পাশে থাকবে ইনশাআল্লাহ।

শিবির নেতৃবৃন্দ নবনির্বাচিত আমীরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমানের সুস্থ্যতা এবং ইহকালীন ও পরকালীন সাফল্য কামনা করেন।

(বিজ্ঞপ্তি)

Comments

comments