এরদোগানকে রাজি করাতে পেন্স ও পম্পেওকে পাঠাচ্ছেন ট্রাম্প

সিরিয়ার কুর্দিদের বিরুদ্ধে তুরস্কের সামরিক অভিযান বন্ধের বিষয়ে দেশটিতে সফর করবেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। যুদ্ধবিরতির বিষয়ে তুর্কি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলোচনা করতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাদের তুরস্ক পাঠাচ্ছেন বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজে ট্রাম্প জানান, কাল (বুধবার) পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও-কে নিয়ে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স তুরস্ক সফরে যাবেন ।

যদিও ইতিমধ্যেই সামরিক অভিযান বন্ধ করার ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান।

উচ্চপর্যায়ের এ সফরে সিরিয়ায় তুরস্কের চলমান অপারেশন পিস স্প্রিং এবং সিরিয়ার সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করা হবে বলে জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

হোয়াইট হাউজের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনার চেষ্টা এবং যুক্তরাষ্ট্রের অব্যাহত নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে সতর্ক করার লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানের সঙ্গে বৈঠকের পরিকল্পনা করছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, তুরস্কে পৌঁছে যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট তাৎক্ষণিক যুদ্ধবিরতির কথা তুলবেন। তিনি সমঝোতার শর্তগুলোও তুলে ধরবেন।

এদিকে কুর্দিদের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান বন্ধ করার ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান।

মঙ্গলবার রাতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ফোনালাপে এরদোগান যুদ্ধবিরতিতে রাজি না হওয়ার বিষয়টি সুস্পষ্টভাবে জানিয়ে দেন বলে ডেইলি সাবাহর খবরে বলা হয়েছে।

সিরীয় অঞ্চল থেকে সীমান্ত পর্যন্ত ৩০ কিলোমিটার ভূখণ্ডে বাফার জোন বা নিরাপদ অঞ্চল প্রতিষ্ঠা পর্যন্ত কোনও যুদ্ধবিরতি সম্ভব নয় বলে জানান তুর্কি প্রেসিডেন্ট।

এরদোগান বলেন, আমি তাকে (ডোনাল্ড ট্রাম্প) বলেছি যে তুরস্ক সন্ত্রাসীদের সঙ্গে আলোচনা করবে না।

Comments

comments