ইবি ছাত্রলীগ সভাপতিকে ক্যাম্পাস ছাড়া করল কর্মীরা

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশকে বিদ্রোহী গ্রুপের কর্মীরা অপমান করে ক্যাম্পাসছাড়া করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার দুপুরে দলীয় টেন্টে এ ঘটনা ঘটে। তবে ওই কর্মীদের বিরুদ্ধে মাদকাসক্তের অভিযোগ তুলেছেন পলাশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকালে ১০-১২ জন কর্মী নিয়ে দলীয় টেন্টে অবস্থান করেন সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ। এ সময় তার অনুসারীরা তার সঙ্গে দেখা করতে আসে। একপর্যায়ে দুপুর ১২টার দিকে বিদ্রোহী গ্রুপের বিপুল খান, শাহজালাল সোহাগ, আল আমিন জোয়ার্দার, জুবায়ের, মোশারফ হোসেন নীলের নেতৃত্বে ৫০-৬০ জন কর্মী টেন্টে আসেন। তখন বিপুল খান সভাপতি পলাশকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘তোর টেন্টে কী? সম্মান থাকলে চলে যা, নইলে মারব।’ এরপর সভাপতি তার কর্মীদের নিয়ে ক্যাম্পাসের বাইরে চলে যান। পরে বিদ্রোহী গ্রুপের নেতা মিজানুর রহমান লালন ও ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত টেন্টে এলে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন তারা।

এদিকে বিদ্রোহী গ্রুপের বিরুদ্ধে মাদকাসক্তের অভিযোগ তুলেছেন পলাশ। তিনি বলেন, যারা আমার সঙ্গে অশোভন আচরণ করেছে, তাদের অধিকাংশের বিরুদ্ধে মাদকসেবন ও ব্যবসার অভিযোগ রয়েছে। আজকেও তাদের স্বাভাবিক মনে হয়নি। আমি চলে আসার কিছুক্ষণ পর তাদের একজন টেন্টের পাশে বমি করেছে। এ ঘটনায় কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আমি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে মিজানুর রহমান লালন বলেন, বিপুলের বাড়িতে র্যাব পাঠানো, কর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা, সভাপতি হওয়ার আগে দীর্ঘদিন ক্যাম্পাসের বাইরে থাকাসহ বিভিন্ন কারণে কর্মীরা তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছেন। তাই তাকে ক্যাম্পাসে থাকতে দেননি তারা। মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

Comments

comments