অমিত সাহার পুরো পরিবার ইসকনের সদস্য, জমি দখল করে দেশ ছেড়ে বৃন্দাবন

বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার প্রধান পরিকল্পনাকারী গ্রেফতার হওয়া আসামি ইসকনের সদস্য অমিত সাহাকে নিয়ে নেত্রকোনায় শুরু হয়েছে তীব্র প্রতিক্রিয়া। অমিত সাহা নেত্রকোনার সদর উপজেলার ঠাকুরাকোনার স্থায়ী বাসীন্দা। তার বাবার নাম রঞ্জিত সাহা। তিনি একজন ধানের বড় ব্যবসায়ী।

সেখানে সাহা ট্রেডার্স নামে অমিতের বাবার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। অনেকেই এই লাইসেন্স ও ধার নেয়া সুদের টাকা দিয়ে ব্যবসা করেন। অর্থের জোরে এলাকায় তার বাবার রয়েছে প্রভাব প্রতিপত্তি। বাবার অর্থ, প্রভাব ও ছাত্রলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকায় অবৈধভাবে জায়গা, জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, অমিতদের আগের বাসা নেত্রকোনা পৌর এলাকার নাগড়ায় সাহা পাড়ায় থাকলেও তার বাবা সেটা বিক্রি করে তেরী বাজার ঝুমা রানী তালুকদারের কাছ থেকে দুই দশমিক ৫০ শতক জায়গা ক্রয় করেন। কিন্তু জোরপূর্বক সীমানা অতিক্রম করে জায়গা দখল করে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে।

প্রতিবেশী হোমিও চিকিৎসক ডাঃ বিশ্বনাথ সরকার জানান, পাঁচ শতক জায়গার মধ্যে পৌনে তিন শতক অর্থাৎ দু দশমিক ৭৫ শতক জায়গার মালিক আমি নিজে। তারমধ্যে বাকী থাকে সোয়া দুই শতাংশ অর্থাৎ দুই দশমিক ২৫ শতক। সেখানে রঞ্জিত সাহা শূন্য দশমিক ২৫ শতক জায়গা দখল করে সীমানা দেয়াল দিয়ে ফেলেন। এ নিয়ে অনেক ঝুট, ঝামেলা হলেও এখনো জায়গা ফেরত দেননি।

অমিতের বাবা রঞ্জিত সাহার ব্যাবসায়ী পার্টনার অনিল কান্তি সাহা রায় জানান, গত ২৩ সেপ্টম্বর রঞ্জিত সাহা স্ত্রীসহ ভারতে গিয়ে এখন বৃন্দাবনে অবস্থান করছেন।

আরো জানা যায়, অমিত সাহার পরিবারের সকলেই নাকি ইসকনের সদস্য। অমিতরা এক ভাই ও এক বোন। অমিত বুয়েটে ও তার একমাত্র বোন ঐশ্বিরিয়া সাহা নরসিংদী কাদের মোল্লা সিটি কলেজে পড়াশোনা করছে।

আররার ফাহাদের হত্যাকান্ডে প্রধান পরিকল্পনাকারী ও জড়িত থাকার দায়ে অমিতের গ্রেফতার হবার সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে নেত্রকোনায় সাধারণ শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক ও সুশীল সমাজের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে।

তারা অমিতসহ আবরার হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সকলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানিয়েছেন।

Comments

comments