ডেঙ্গুতে ঢামেকে আরও ৩ জনের মৃত্যু

ঢাকার ৬৭টি ওয়ার্ডই ডেঙ্গুর ঝুঁকিতে

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মঙ্গলবার আরও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ঢামেক হাসপাতালে ডেঙ্গুতে নিহতের সংখ্যা দাঁড়াল ১৭ জনে।

নতুন করে তিনজনের ডেঙ্গুতে মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢামেক হাসপাতালের সহকারী পরিচালক মো. নাসির উদ্দিন।

তারা হলেন- চাঁদপুরের মনোয়ারা বেগম (৭৫), মানিকগঞ্জের আমজাদ মণ্ডল (৫২) ও ফরিদপুরের হাবিবুর রহমান (২১)।

হাসপাতালে নিহত মনোয়ারা বেগম চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার আহমেদপুর এলাকার আবদুল হাইয়ের স্ত্রী। তিনি মিরপুর এলাকায় পরিবারের সঙ্গে থাকতেন।

গত শনিবার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত মনোয়ারাকে ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সিতে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার ভোরে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) মারা যান তিনি।

মনোয়ারার ছেলে মোশারফ হোসেন সেলিম জানান, এক সপ্তাহের ডেঙ্গু জ্বরের পর মাকে হারালেন তিনি।

এদিকে নিহত আমজাদ মণ্ডল মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় থানার তেঁতুয়া ধারাগ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম আবদুল হামিদ মণ্ডল।

সোমবার দিবাগত রাত ৩টায় তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল পৌনে ৬টায় মেডিসিন বিভাগের ৬০১ নম্বর ওয়ার্ডে তিনি মারা যান।

নিহতের ছোট ভাই রাশেদ মণ্ডল জানান, তার ভাই গত শুক্রবার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হন। তাকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে রোগীকে সেখান থেকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকালে তার মৃত্যু হয়।

মারা যাওয়া অন্যজন হাবিবুর রহমানের গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায়। তার বাবার নাম কালাম মাতুব্বর। ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ৩১ জুলাই ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর পৌনে ৩টার দিকে মারা যান তিনি।

ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ভর্তি ২৮৩ জন ডেঙ্গু রোগী এই হাসপাতালে ভর্তি হন। আর ছাড়পত্র পেয়েছেন ১৭০ জন। বর্তমানে ৬৮০ জন ডেঙ্গু রোগী ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

তিনি বলেন, এখনই বলা যাচ্ছে না ডেঙ্গু রোগী ভর্তি বাড়ছে নাকি কমছে। তবে আমাদের প্রস্তুতি প্রতিদিন বাড়ছে। হাসপাতালে যারা মারা যাচ্ছেন, তাদের সম্পর্কে হুট করেই বলা যাবে না যে তারা ডেঙ্গুতেই মারা গেছে। যাচাই-বাছাই করেই বলা যাবে।

Comments

comments