অবৈধ অস্ত্র ও সন্ত্রাসে যুক্ত থাকলেও ছাত্রলীগ নেতা মেশকাতকে গ্রেফতার করছে না পুলিশ

ছাত্রলীগ নেতা মেশকাত হোসেন অবৈধ অস্ত্র নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে মহড়ার সময় নিজের অস্ত্রে নিজে গুলিবিদ্ধ হলেও এখন গ্রেফতার করছে পুলিশ।

শনিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে সূর্যসেন হলের হল গেটে অবৈধ অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেওয়ার সময় নিজের গুলিতে তিনি আহত হন। বর্তমানে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে।

সুত্রে জানা যায়, শনিবার রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টারদা সূর্যসেন হলের ফটকের সামনে সাঙ্গ-পাঙ্গদের নিয়ে আড্ডা দিচ্ছিল মেশকাত। হঠাৎ একটি বিকট শব্দ শোনা যায়। সঙ্গে সঙ্গে মেশকাতের ডান পায়ের হাঁটু থেকে রক্ত বের হতে দেখতে পায়। তখন মেশকাত হোসেন তার পকেটে থাকা পিস্তল বের করে আবার পকেটে রাখেন।

তার ঘনিষ্টরা জানান, মেশকাত সবসময় তার সঙ্গে লাইসেন্স বিহীন একটি অস্ত্র বহন করেন। সেদিন তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। লোড করা পিস্তল আনলক করা ছিল। অসাবধানতায় চাপ পড়ে তার পকেট থেকে গুলি বের হয়ে নিজের পায়ে লাগে।

এই মেশকাত বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেন হলের আবাসিক ছাত্র। তিনি দর্শন বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী।

প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিদের বরাত দিয়ে ক্যাম্পাসে দায়িত্বরত একটি গোয়েন্দা সূত্র জানায়, গত রাতে সূর্যসেন হলের ফটকের সামনে কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে দাঁড়িয়ে ছিলেন মেশকাত। এ সময় তাঁর পকেটে একটি অবৈধ অস্ত্র ছিল। একপর্যায়ে বিকট একটি শব্দ শোনা যায়। মেশকাতের ডান পা থেকে রক্ত ঝরতে দেখেন বন্ধুরা। মেশকাত তাঁদের জানান, তাঁর পকেটে থাকা অস্ত্রে চাপ লেগে গুলি বেরিয়ে ডান হাঁটুর কাছাকাছি একটি জায়গায় লেগেছে। পরে মেশকাতকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়।

মেশকাত আগে সূর্যসেন হল শাখা ছাত্রলীগের পদধারী নেতা ছিলেন। হলের একটি কক্ষে ভাঙচুর ও চুরির ঘটনায় তিনি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এক বছরের জন্য বহিষ্কৃত হয়েছিলেন। এরপর আবারও প্রকাশ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসে অবৈধ অস্ত্র নিয়ে বিভিন্ন সময় মহড়া দিয়ে আসছিলো এই নেতা।

Comments

comments