এবার ট্রাম্পের ছেলের মুখে থুতু!

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছেলে এরিক ট্রাম্পের মুখে থুতু দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গত মঙ্গলবার এরিক যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় রাজ্যের শিকাগো শহরে এক রেস্তোরাঁয় নৈশভোজে অংশ নেন। সেখানেই এ ঘটনা ঘটে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানাচ্ছে, এ ঘটনায় ওই রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ বুধবার খাবার পরিবেশনকারী এক নারীকে ছুটিতে পাঠিয়েছে। ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের এক প্রতিনিধির বরাতে আরও জানা গেছে, এরিক ট্রাম্প শিকাগোর পশ্চিমে অবস্থিত এক অভিজাত রেস্তোরাঁয় নৈশভোজে অংশ নিয়েছিলেন। মূলত এটি ছিল তাঁর ব্যবসাসংক্রান্ত ভোজ। এ সময় ওই রেস্তোরাঁর এক নারী কর্মী হুট করেই এরিকের মুখে থুতু ছোড়েন।

তবে ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের অন্য এক প্রতিনিধি এ ঘটনায় কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। এরিক বলেছেন, যে ব্যক্তি এ ধরনের আচরণ করেন, বোঝা যায় তাঁর আবেগ প্রকাশে সমস্যা আছে।

ওই রেস্তোরাঁ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, কোনো গ্রাহকের সঙ্গেই এমন করা উচিত নয়। বিবৃতিতে তারা বলেছে, ‘আমরা এখনো ওই কর্মীর সঙ্গে কথা বলেতে পারিনি। তবে এরই মধ্যে আমাদের মানবসম্পদ বিভাগ ওই কর্মীকে ছুটিতে পাঠিয়েছে।’

শিকাগো পুলিশ প্রধান এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা ও শিকাগো পুলিশ এ ঘটনা পর্যালোচনা করে দেখেছে। তবে ট্রাম্প অর্গানাইজেশন শিকাগো ট্রিবিউনকে জানিয়েছে, কর্তৃপক্ষ ওই নারীকে কারাগারে পাঠিয়েছিল। তবে এরিক ট্রাম্প এ ঘটনায় কোনো অভিযোগ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে এ ধরনের ঘটনা নতুন নয়। এর আগে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুখপাত্র সারা স্যান্ডার্সকে একটি রেস্তোরাঁ থেকে বের হয়ে যেতে হয়েছিল। কারণ, ওই রেস্তোরাঁর মালিক ট্রাম্প প্রশাসনের রাজনীতির সঙ্গে একমত ছিলেন না।

Comments

comments