সেই যুবলীগ ক্যাডারকে কারাগারে পিটিয়ে হত্যা

চট্টগ্রামের ত্রাস ও নানা অপকর্মের হোতা যুবলীগ ক্যাডার অমিত মুহুরী চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি অবস্থায় কয়েদির হাতে খুন হয়েছেন। এ ঘটনার পর থেকে কারাগারে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় বলেও জানা গেছে।

বুধবার (২৯ মে) মধ্যরাতে তার মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম কারাগারের জেলার নাছির আহমেদ। যুবলীগের কর্মী ইমরানুল করিম হত্যাসহ নানা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত এই যুবলীগ ক্যাডার।

নিহত অমিত যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির উপ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক হেলাল আকবর চৌধুরী ওরফে বাবরের অনুসারী।

নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে কয়েদিদের নিজেদের মধ্যে মারামারিতে নিহত হন অমিত। ৩২ নম্বর সেলে রিপন নামের অপর এক কয়েদির ইটের আঘাতে অমিত গুরুতর আহত হন। এরপর তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ১৩ আগস্ট নগরের এনায়েত বাজারের রানীরদিঘি এলাকা থেকে যুবলীগের কর্মী ইমরানুল করিমের ড্রামভর্তি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, ওই বছরের ৯ আগস্ট নগরের নন্দনকানন হরিশ দত্ত লেনের নিজের বাসায় ইমরানুলকে ডেকে নেন অমিত। এরপর বাসার ভেতরেই তাকে হত্যা করা হয়। একই বছরের ২ সেপ্টেম্বর অমিতকে কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

Comments

comments