‘ইমরুলের বাদ পড়া দুভার্গ্যজনক’

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলে ইমরুলের সুযোগ পাওয়ার উচিত ছিলো। কেন বাদ পড়লেন ইমরুল হাজারো প্রশ্নের উত্তর জানা না থাকলেও, শাহরিয়ার নাফীসের মতে, ব্যাপারটি ইমরুলের জন্য দুর্ভাগ্যজনক। তার পরেও সময়ের সেরা দল ঘোষণা করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। এছাড়াও, নাফীস জানিয়েছেন বিশ্বকাপ মঞ্চে বাংলাদেশের ব্যাটিং অর্ডারে সাকিবের তিন নম্বরে খেলাটা হবে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত।

ইমরুল কায়েস বাংলাদেশের ক্রিকেটে সবচেয়ে অবহেলিত এক ক্রিকেটারের নাম। বিশেষ কোচ হাথুরুসিংহের সময়ে ব্যাপারটি সবচেয়ে সমালোচিত হয়। কিন্তু, কোচ বদলালেও বদলায়নি মাঠের ক্রিকেটে বরাবরই প্রমাণিত ইমরুলের ভাগ্য। নিউজিল্যান্ড সিরিজের পর ইংল্যান্ড বিশ্বকাপেও জায়গা হয়নি ইমরুলের। অথচ, তার জায়গায় যে দুইজন টপ অর্ডার আছেন লিটন ও সৌম্য তাদের ফর্ম কখনোই ছিলো না ধারাবাহিকতার ছোঁয়া।

সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচে লিটন করেছেন মোটে ৩৪রান আর সৌম্য করেছেন ১৩৮ রান। আর ইমরুল সমান ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি আর এক ফিফটিতে করেছেন ৩৫৩ রান। কিন্তু, তার পরেও বলির পাঠা নাম ইমরুল কায়েস। ব্যাপারটি এক সময়ের সতীর্থ নাফীসকেও করেছে হতবাক।

শাহরিয়ার নাফিস বলেন, ও টিমে থার্ড ওপেনার হিসেবে থাকলে হয়ত ভালো হত। ওয়ার্ল্ড কাপের টিমটা মোর অর লেস স্যাটিসফ্যাক্টরি। ১৫ জনের মধ্যে ১৩ জন মোটামুটি সিওর ছিল। এই প্রথম আমরা কোন দল পেলাম যেখানে আসলে খুব বেশি বিতর্কের সুযোগ নেই।

ভাগ্যে দোষে ইমরুল আর ম্যাচ ফিটনেসের কারণে তাসকিনের বাদ পড়ার ব্যাপারটি আলাদা করে রেখে সময়ের সেরা বিশ্বকাপ বাংলাদেশ দল বলছেন নাফীস।

বললেন, সাকিবকে আমরা তিনে দেখেছি, চারে মুশফিককে দেখেছি, মিথুনকে দেখেছি, এদিকে নির্বাচকদের ৩য় ওপেনার রাখার যে টেন্ডেন্সি সেটা কমে গিয়েছে।

আইসিসি’র ইভেন্ট মানে উইকেট থাকে রানের বান। তাই বাংলাদেশ একাদশ সাজাবে ব্যাটিং গভীরতাকে মূল্যায়ন করে। সাকিব তিন নম্বরে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত হবে সাহসী। আর একাদশে মিথুনকেও রাখতে চান নাফীস।

Comments

comments