একই পরিবারের ৫ জন ৬ দিন ধরে ‘নিখোঁজ’

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে মা, দুই মেয়েসহ একই পরিবারের পাঁচজন ছয় দিন ধরে নিখোঁজ। পুলিশ ও বাড়ির কর্তার ধারণা, পারিবারিক মান-অভিমান থেকে তাঁরা গা ঢাকা দিয়েছেন।

নিখোঁজ ব্যক্তিরা হলেন সিদ্ধিরগঞ্জের পূর্ব নিমাইকাশারী মাদানীনগর নুরবাগ এলাকার জামাল সরদারের স্ত্রী নিপা বেগম (৩০), মেয়ে আশামনি (১১) ও প্রিয়া মনি (৪), তাঁর ভায়রার মেয়ে সুমাইয়া (১৪) ও শ্যালকের ছেলে আজিম (৭)। এই ঘটনায় গত বুধবার জামাল সরদার সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। গত রোববার থেকে নিখোঁজ এই ছয়জনকে আজ শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

জিডিতে জামাল সরদার উল্লেখ করেন, তিনি গাজীপুরের শ্রীপুরে একটি পোশাক কারখানায় প্রোডাকশন ম্যানেজার (পিএম) হিসেবে চাকরি করছেন। প্রতি সপ্তাহের মতো ৭ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) তিনি স্ত্রী-সন্তানদের কাছে আসেন। শনিবার ভোররাতে তিনি কর্মস্থলে যাওয়ার সময় স্ত্রীর হাতে বেতনের ৭০ হাজার টাকা দিয়ে যান। এরপর রোববার রাত পৌনে ১০টা থেকে তিনি স্ত্রীর মুঠোফোন বন্ধ পাচ্ছেন।

জিডিতে বলা হয়, সোমবার সকালে জামাল সরদার তাঁর ছোট ভাই খলিলকে ফোন করে বাসায় খোঁজ নিতে বলেন। খলিল বাসায় গিয়ে দেখেন ওই বাসার দরজায় তালা ঝোলানো। এরপর জামাল নিজের আত্মীয়স্বজন ও শ্বশুরবাড়িতে খোঁজ নিয়েও স্ত্রী-সন্তানদের কোনো সন্ধান পাননি।

জামাল সরদার বলেন, ‘তাঁদের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। আমার ধারণা, আমার ওপর রাগ করে তারা বাড়ি ছেড়ে গেছে।’ জামাল সরদার জানান, তাঁর গ্রামের বাড়ি বরিশালের উজিরপুরে ও শ্বশুরবাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কাঞ্চনপুর এলাকায়।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) এস আই শামীম হোসেন বলেন, ‘নিখোঁজ হওয়ার আগের দিন জামাল সরদারের সঙ্গে স্ত্রী নিপা বেগমের ঝগড়া হয়। পরদিন থেকে তারা নিখোঁজ। আমরা নিপার গ্রামের বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজখবর নিচ্ছি।’

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিন পারভেজ বলেন, ‘নিখোঁজদের খোঁজে চেষ্টা চলছে। আমরা জামাল সরদারের শ্বশুরবাড়িতেও কথা বলেছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।’

Comments

comments