আওয়ামী লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

ঈশ্বরদীতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হয়েছেন পাকশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিম।

তার পরিবার সূত্র জানায়, বুধবার রাত ৯টার দিকে পাকশী ইউনিয়নের রূপপুর বিবিসি বাজার থেকে তার নিজ বাড়ি ঢোকার সময় দুর্বৃত্তরা তাকে এলোপাতাড়ি গুলি করে দ্রুত পালিয়ে যায়। শরীরে একাধিক গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে এলাকাবাসী ও পরিবারের সদস্যরা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপে­ক্সে নিয়ে আসে।

সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে রাত সাড়ে দশটার দিকে তার মৃত্যু হয়।

ঈশ্বরদী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. শফিকুল ইসলাম শামীম জানান, আওয়ামী লীগ নেতা সেলিমের পেটে দুটি ও পিঠে একটি গুলি লেগেছে এবং প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর তার মৃত্যু হয়।

মোস্তাফিজুর রহমান সেলিমের ছোট ভাই রুবেল জানান, রাত ৯টার দিকে রূপপুর বিবিসি বাজার থেকে হেঁটে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। তিনি বাড়ির সামনে এসে পৌঁছালে কয়েকজন দুর্বৃত্ত একটি মোটরসাইকেল থেকে কয়েক রাউন্ড গুলি করে পালিয়ে যায়।

পাকশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছাইফুল আলম বাবু মন্ডল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি ঢাকায় আছি তাই কে বা কারা গুলি করেছে তা জানতে পারিনি।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তদন্ত চলছে। ঘটনাস্থল থেকে গুলির খোসা উদ্ধার হয়েছে। বিস্তারিত পরে জানাব।

এদিকে মুক্তিযোদ্ধা সেলিম গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে শত শত মানুষ তার বাড়ি এবং ঈশ্বরদী হাসপাতালে সমবেত হয়।

মুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গোলাম মোস্তফা চান্না মন্ডল জানান, সেলিম আওয়ামী লীগের ঈশ্বরদী উপজেলা কমিটি সদস্য।

Comments

comments