অ্যালকোহলের বলি বছরে ৩০ লাখ

অ্যালকোহলের বলি বছরে ৩০ লাখ মানুষ। বিশ্বে প্রতি ২০টি মৃত্যুর মধ্যে একটিই হচ্ছে এই কারণে। মদ, বিয়ার, ওয়াইনসহ নানা ধরনের অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় পানের এই প্রাণঘাতী ফলাফলের কথা জানাল খোদ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। শুক্রবার সন্ধ্যায় চোখ কপালে ওঠা এই পরিসংখ্যান জানা গেল সদ্য প্রকাশিত হু’র ‘গ্লোবাল স্ট্যাটাস রিপোর্ট অন অ্যালকোহল অ্যান্ড হেলথ, ২০১৮’ থেকে।

হু জানিয়েছে, অ্যালকোহল নানাভাবে মৃত্যু ডেকে আনছে। যত মানুষ এর বলি হচ্ছে, তার ২৮ শতাংশের মৃত্যু হচ্ছে অ্যালকোহলযুক্ত ড্রিঙ্কস পান করার পর মারামারি, মারাত্মক ক্ষত, পথ দুর্ঘটনা ইত্যাদি কারণে। ২১ শতাংশের মৃত্যুর কারণ নানা ধরনের পেটের অসুখে।

অ্যালকোহলের কারণে আরো ১৯ শতাংশের মৃত্য হয় হার্টের অসুখে। অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় সেবনের কারণে বাদবাকি মৃত্যু হয় নানা ধরনের সংক্রামক অসুখ, ক্যান্সার, মানসিক সমস্যা এবং অন্যান্য শারীরিক সমস্যার জন্য। তারা আরো জানিয়েছে, অ্যালকোহলযুক্ত যত ধরনের পানীয় মানুষ সেবন করছে, তার ৪৫ শতাংশই বিভিন্ন ধরনের মদ। ৩৪ শতাংশ হল বিয়ার এবং ১২ শতাংশ হলো ওয়াইন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বর্তমানে পৃথিবীতে ২৩০ কোটি মানুষ অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় সেবন করেন। এর মধ্যে ২৩ কোটি ৭০ লাখ পুরুষ এবং ৪ কোটি ৬০ লাখ মহিলা নানা ধরনের শারীরিক সমস্যায় ভুগছেন। ইউরোপীয় দেশগুলোতে এর প্রভাব সবচেয়ে বেশি।

অ্যালকোহল পানের ফলে যত নারী-পুরুষ ভুগছে, তার মধ্যে ১৪.৮ শতাংশ পুরুষ এবং ৩.৫ শতাংশ নারীই বাস ইউরোপের বিভিন্ন দেশে। এরপরই খারাপ অবস্থা বেশি আমেরিকায়। পুরুষ ও মহিলাদের ক্ষেত্রে এই পরিসংখ্যান যথাক্রমে ১১.৫ শতাংশ এবং ৫.১ শতাংশ। আরো উদ্বেগজনক বিষয় হল, আগামী ১০ বছরে অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় সেবনের প্রবণতা আরো বাড়বে। বিশেষত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় বিস্তীর্ণ অঞ্চলে।

অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, কতটা অ্যালকোহল গড়পড়তা একজন মানুষ গ্রহণ করেন? হু জানিয়েছে, মদ্যপায়ীদের ক্ষেত্রে গড়ে ১৫০ মিলিলিটার করে দু’ গ্লাস ওয়াইন বা ৭৫০ মিলি বিয়ার বা ৪০ মিলি করে দু’টি শট মদ। তবে যে পানীয় প্রীতিই থাকুক না কেন, এ কারণে প্রতিদিন পানরসিকদের শরীরে ঢুকছে ৩৩ গ্রাম করে অ্যালকোহল!

কারা বেশি অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় সেবন করছেন? মারাত্মক চিত্রটি হল, বিশ্বে ১৫ থেকে ১৯ বছর বয়সী ছেলেমেয়ে এবং সদ্য প্রাপ্তবয়স্কদের কমপক্ষে চার ভাগের এক ভাগই অ্যালকোহল পান করছে। এর হার ইউরোপে সবচেয়ে বেশি— ৪৪ শতাংশ। তারপর আসছে আমেরিকা এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের মানুষ— ৩৮ শতাংশ।

তাহলে কি ভালো খবর নেই? হু জানিয়েছে, ২০১০ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ইউরোপে গড়ে তিন শতাংশ মদ্যাপান কমেছে। কিন্তু, তিন শতাংশ করে বিয়ার ও ওয়াইন পান বেড়েও গেছে।

Comments

comments