চোরাই গরুসহ আ.লীগ নেতার ছেলে আটক

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলায় সাতটি চোরাই গরু উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় সোনাতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের মাহবুবুল আলম বুলুর ছেলে মেহেরুল ইসলাম সজলসহ দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে।

বুধবার দুপুরে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা বুলুর গ্রামের বাড়ি সোনাতলার সুজাইতপুরের (বড়শিচড়া) নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

সজল সোনাতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের মাহবুবুল আলম বুলুর ছেলে ও লিটন মিয়া (২৩) বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার ভরিয়া গ্রামের টুকু মিয়ার ছেলে।

সোনাতলা থানার এসআই আব্দুর রাজ্জাক জানান, বেশ কিছুদিন আগে দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার ডুমুরিয়া গ্রামের আলতাফ হোসেনের দুটি গাভী, রনজয়পুর গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের দুটি গাভী ও একটি বাছুর, দীঘিরবিল গ্রামের সরোয়ার হোসেনের একটি গাভী ও ১টি বাছুর চুরি যায়। এ ব্যাপারে নবাবগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়রি (জিডি) হয়েছে।

এ ঘটনার জের ধরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ বুধবার ভোরে উপজেলার ভরিয়া গ্রামের প্রথমে লিটনকে বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বেলা ১১টার দিকে সোনাতলা থানা পুলিশের সহযোগিতায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সোনাতলা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম বুলুর গ্রামের বাড়ির বাঁশঝাড়ের মধ্য থেকে গরুগুলো উদ্ধার করে। সেই সঙ্গে তার ছেলে মেহেরুল ইসলাম সজলকে গ্রেফতার করেছে।

এ প্রসঙ্গে সোনাতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম বুলু জানান, আমার বাড়ি থেকে ৫০০ গজ দূরে নয়াপাড়ার বাঁশঝাড়ের মধ্যে থেকে গরুগুলো পাওয়া যায়। কিন্তু আমার ছেলে সেখানে আন্যান্যদের সঙ্গে দেখতে গেলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

Comments

comments