‘তনু, রাফিয়া, নুসরাত—আগামীকাল আমি নই তো?’

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা ও নারী নিপীড়নের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন মাগুরা মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা। আজ শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে শহরের প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন হয়।

‘তনু, রাফিয়া, নুসরাত—আগামীকাল আমি নই তো?’, ‘আমার বোন হত্যার বিচার করুন অথবা আমাকে হত্যা করুন’, ‘বার্ন ইউনিটে জ্বলছে বোনের লাশ, রাষ্ট্র কী করে ধর্ষকের মুক্তি চাস’ ইত্যাদি স্লোগান লেখা পোস্টার হাতে মানববন্ধনে দাঁড়ান শিক্ষার্থীরা।

নুসরাত হত্যার বিচারের পাশাপাশি আরও দুটি দাবি জানান শিক্ষার্থীরা। তাঁদের দাবি, ধর্ষণের মামলা বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচার করতে হবে। এ ধরনের মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) ঘটনার ৭ দিনের মধ্যে দিতে হবে। প্রয়োজনে এটিকে আইনে রূপান্তর করতে হবে।

তাঁরা বলেন, শুধু দেরিতে চার্জশিট দেওয়ার কারণে মামলা দুর্বল হয়ে যায়। প্রায়ই দেখা যায়, এ কাজে সময় লেগে যায় কয়েক বছর। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ অন্যদের গড়িমসির কারণে পার পেয়ে যায় ভয়ংকর অপরাধীরা।

শিক্ষার্থীদের মতে, আইনের ফাঁক গলে অপরাধীদের পার পাওয়ার সুযোগ রয়েছে বলেই একের পর এক অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। এ জন্য রাষ্ট্রের ব্যর্থতাকেই দায়ী করেন তাঁরা।

মানববন্ধনে এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘কখনো কখনো নারীর ওপর নিপীড়ন হলে উল্টো ওই নারীর পোশাক বা চলাচল নিয়ে প্রশ্ন তোলে এই সমাজেরই একটি অংশ। এখন তারা কী বলবে? নুসরাত তো বোরকা পরেও পশুদের হাত থেকে রক্ষা পেল না।’

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন আরাফাত হোসেন, মাইশা কবির, হুমাইরা, সোহানসহ মাগুরা মেডিকেল কলেজের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী। নুসরাতের আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে শেষ হয় মানববন্ধন।

সূত্র: প্রথম আলো

Comments

comments