ইসলাম শিক্ষা বইয়ে এইডস, যৌন হয়রানি নিয়ে বারবার আলোচনা!

মাধ্যমিকের বিভিন্ন শ্রেণীর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ে এইডস, ইভটিজিং বা যৌন হয়রানি, মাদকাসক্তি, ছিনতাই, ঘুষ সন্ত্রাসসহ বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। অথচ এর প্রতিটি বিষয়সহ আরো বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা সপ্তম শ্রেণী থেকে বিভিন্ন শ্রেণীর একাধিক পাঠ্যবইয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে।

ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বই ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়, শারীরিক শিক্ষা ও বিজ্ঞান বইয়ে এসব বিষয় দীর্ঘ পরিসরে আলোচনা করা হয়েছে। এইডস, মাদকাসক্তি, নারীনির্যাতন প্রভৃতি বিষয়ে বিভিন্ন বইয়ে আলাদা অধ্যায় রয়েছে। এমনকি একই শ্রেণীর একাধিক বইয়ে একই বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। তারপরও ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ে এসব সামাজিক সমস্যা নিয়ে আলোচনা করায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন শিক্ষক ও অভিভাবকদের অনেকে।

অনেকের মতে এসব সামাজিক সমস্যা ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে আলোচনা করা যায়। কিন্তু যেহেতু বিভিন্ন শ্রেণীতে অন্যান্য বইয়ে এসব নিয়ে বারবার বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে তাই এসব নিয়ে ধর্মীয় বিষয়ে আর আলোচনার কোনো দরকার ছিল না। তারচেয়ে বরং ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ে ধর্মীয় বিষয় প্রয়োজনে আরো বাড়ানো যেত।

সপ্তম শ্রেণীর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ের চতুর্থ অধ্যায়ের কয়েকটি শিরোনাম হলো ইভটিজিং (যৌন হয়রানি), ছিনতাই, শ্রমের মর্যাদা, অসদাচরণ, হিংসা, ক্রোধ, লোভ, প্রতারণা প্রভৃতি।

অষ্টম শ্রেণীর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ের চতুর্থ অধ্যায়ের কয়েকটি শিরোনাম হলো এইচআইভি এবং এইডস, সমাজসেবা, দেশপ্রেম, অশ্লীলতা, ঘৃণা, চৌর্যবৃত্তি, ঘুষ, সন্ত্রাস, ভ্রাতৃত্ব, নারীর মর্যাদা, পরমতসহিষ্ণুতা, অহঙ্কার প্রভৃতি।

নবম-দশম শ্রেণীর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ে তৃতীয়, চতুর্থ পঞ্চম অধ্যায়ের কয়েকটি শিরোনাম হলো মালিক-শ্রমিক সম্পর্ক, শিক্ষার্থীর বৈশিষ্ট্য, শিক্ষকের গুণাবলি, ছাত্র-শিক্ষক সম্পর্ক, শালীনতা, মানবসেবা, ভ্রাতৃত্ববোধ ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, নারীর প্রতি সম্মানবোধ, স্বদেশপ্রেম, কর্তব্যপরায়ণতা, পরিচ্ছন্নতা, মিতব্যয়িতা, কর্মবিমুখতা, প্রতারণা, সুদ ও ঘুষ, জ্ঞান-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি চর্চায় মুসলমানদের অবদান প্রভৃতি।

ষষ্ঠ শ্রেণীর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ের চতুর্থ অধ্যায়ে ধূমপান ও মাদকাসক্তি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

এ দিকে ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বই ছাড়াও নবম-দশম শ্রেণীর তিনটি বইয়ে একই বিষয় তথা এইচআইভি-এইডস বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এ ছাড়া একাধিক বইয়ে মাদকাসক্তসহ বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

নবম-দশম শ্রেণীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ের ১৬তম অধ্যায়ের নাম বাংলাদেশের সামাজিক সমস্যা ও এর প্রতিকার। এ অধ্যায়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ পরিচ্ছেদের নাম হলো এইচআইভি/এইডস। এ বিষয়টি যেসব শিরোনামে আলোচনা করা হয়েছে তা হলো এইচআইভির ধারণা, এইডসের ধারণা, এইডসের কারণ, বাংলাদেশ ও বিশ্বে এইচআইভি/এইডস পরিস্থিতি, এইডস এর প্রভাব, বাংলাদেশে এইডস প্রতিরোধের উপায়, এইডস আক্রান্ত ব্যক্তির প্রতি আমাদের করণীয়। মোট চার পৃষ্ঠাজুড়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে এ বিষয়ে।

এ অধ্যায়ে যৌন হয়রানি তথা ইভটিজিং, সামাজিক অবক্ষয়, মূল্যবোধের অবক্ষয়, নৈরাজ্য, অবক্ষয়ের কারণ ও প্রভাব, অবক্ষয় রোধে করণীয়, নারীনির্যাতন, নারীর প্রতি সহিংসতা, নারীর প্রতি সহিংসতার ধরন, নারী ও শিশু পাচার, নারীর প্রতি সহিংসতার কারণ, এসিড নিক্ষেপ, নারী নির্যাতন প্রতিকার ও কিশোর অপরাধ নিয়ে আলোচনা রয়েছে।

এ অধ্যায়ের আরেকটি পরিচ্ছেদের নাম জঙ্গিবাদ। এখানে জঙ্গি এবং জঙ্গিবাদের ধারণা, জঙ্গিবাদের কারণ, জঙ্গিবাদের প্রভাব ও প্রতিরোধ প্রভৃতি শিরোনামে আলোচনা করা হয়েছে।

বাংলাদেশের সামাজিক সমস্যা ও প্রতিকার অধ্যায়ের আরেকটি পরিচ্ছেদ হলো দুর্নীতি। এখানে দুর্নীতির ধারণা, কারণ, প্রভাব, প্রতিরোধ বিষয়ে আলোচনা রয়েছে।

নবম-দশম শ্রেণীর শারীরিক শিক্ষা বইয়ে মাদকাসক্তি ও এইডস বিষয়টি ১৫ পৃষ্ঠাজুড়ে পুরো একটি অধ্যায়ে আলোচনা করা হয়েছে। এ অধ্যায়ে মোট সাত পৃষ্ঠাজুড়ে আলোচনা করা হয়েছে এইচআইভি এইডস বিষয়ে। এখানে যেসব শিরোনামে এইচআইভি ও এইডস আলোচনা করা হয়েছে তা হলো এইচআইভি/এইডস কী, এইচআইভ/এইডস এর ধারণা, বিস্তার, বাংলাদেশে এইচআইভি/এইডসের ঝুঁকি ও ঝুঁকি মুক্তির উপায়, বাংলাদেশে এইচআইভি/এইডসের ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থান, প্রতিকার, ধর্মীয় ও সামাজিক রীতিনীতি ও অনুশাসন মেনে চলা, সচেতনতা সৃষ্টি, সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের অবদান।
মাদক বিশেষ করে তামাক সেবন, এর কুফল, প্রতিকার, মাদকের ঝুঁকি, ঝুঁকি পরিস্থিতি মোকাবেলা, মাদকের বিরুদ্ধে জনমত গঠন নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে মাদক পরিচ্ছেদে।

এ ছাড়া নবম-দশম শ্রেণীর বিজ্ঞান বইয়েও মাদকাসক্তি ও এইডস বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে উন্নততর জীবনধারা অধ্যায়ে।

অষ্টম শ্রেণীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ের একটি অধ্যায়ের নাম বাংলাদেশের সামাজিক সমস্যা। কিশোর অপরাধ, মাদকাসক্তির ধারণা ও কারণ, মাদকাসক্তির কারণ ও প্রভাব, প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা, মাদকাসক্তি নিয়ন্ত্রণে আইন প্রভৃতি শিরোনামে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

সপ্তম শ্রেণীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ে বাংলাদেশের প্রবীণ ব্যক্তি ও নারী অধিকার বিষয়ে একটি অধ্যায় রয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে বাংলাদেশের সামাজিক সমস্যা নামে আরেকটি অধ্যায়। এখানে যৌতুক সমস্যা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে বাল্যবিবাহ বিষয়ে আলোচনা।

সপ্তম শ্রেণীর শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য বইয়ে একটি অধ্যায়ের নাম স্বাস্থ্যবিজ্ঞান পরিচিতি ও স্বাস্থ্য। পাঁচ পৃষ্ঠাজুড়ে এ পুরো অধ্যায়টি আলোচনা করা হয়েছে মাদক ও মাদকাসক্তি, ব্যক্তি পরিবার ও সমাজে মাদকের পরিণতি, মাদকাসক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে সমবয়সীদের প্রভাব, মাদকাসক্তি প্রতিরোধ, মাদক গ্রহণের চাপ মোকাবেলা নিয়ে।

এমনকি পঞ্চম শ্রেণীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়েও মানবাধিকার বিষয়ক অধ্যায়ে নারী অধিকার, নারী-পুরুষ সমতা নিয়ে আলোচনা রয়েছে। তারপরও এসব বিষয় নিয়ে ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ে আলাদা করে আলোচনার অর্থ খুঁজে পান না অনেকে।

সূত্র: নয়াদিগন্ত

Comments

comments